MIST ভর্তি তথ্য ও প্রস্তুতি

তোমরা অনেকেই হয়তো মিস্ট (mist) বা মিলিটারি ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি সম্পর্কে ধারণা রাখো বা কোনো ধারণাই রাখো না। এটি একটি প্রকৌশল ইনস্টিটিউট, যা বাংলাদেশের একটি সনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আজকে আমরা MIST ভর্তি তথ্য সম্পর্কে খুটিনাটি সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

MIST ভর্তি তথ্য

মিলিটারি ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, সংক্ষেপে এমআইএসটি বা MIST। এটি একটি প্রকৌশল ইন্সটিটিউট। নাম দেখেই আশা করি বুঝতে পেরেছো, এটি বাংলাদেশ মিলিটারি দ্বারা পরিচালিত হয়। ১৯৯৮ সালে যখন এটি প্রতিষ্ঠিত হলে এখানে শুধু মিলিটারির সদস্যরাই পড়ালেখা করতে পারতো। কিন্তু ২০০২ সাল থেকে এখানে বেসামরিক শিক্ষার্থীরাও পড়ালেখা করার সুযোগ পেয়েছিল।

MIST ভর্তি তথ্য ও প্রস্তুতি

এটির অবস্থান মিরপুর সেনানিবাসে। সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে এটি পরিচালিত হয় বলে এখানের শিক্ষা পরিবেশ অত্যন্ত নিয়ন্ত্রিত। দক্ষ শিক্ষকমণ্ডলী এখানে পাঠদান করে থাকে। এমআইএসটির ওয়েবসাইটে গিয়ে শিক্ষকদের ডিটেইলস জেনে নিন।

এটা কি বিশ্ববিদ্যালয়?

না, MIST কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নয়। এটি একটি ইন্সটিটিউট, যা একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত। শুরুতে মিস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত ছিল। পরবর্তীতে এটি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস বা বিইউপির অধিভুক্ত হয়। বিইউপি বাংলাদেশের ২৯ তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

আরো পড়ো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক ইউনিট আসন সংখ্যা

কারা পরীক্ষা দিতে পারবে?

মিস্টে শুধুমাত্র বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরাই পরীক্ষা দিতে পারবে। এখানে সেকেন্ড টাইম এখনো চালু আছে। তাই যারা ২০২০ বা ২০২১ সালে এইচএসসি পাশ করেছে তারা পরীক্ষা দিতে পারবে।

ভর্তি পরীক্ষা

মিস্টের ভর্তি পরীক্ষা সম্পূর্ণ লিখিত পদ্ধতিতে হয়ে থাকে। আর পরীক্ষার বিষয় ম্যাথ, ফিজিক্স, কেমেস্ট্রি ও ইংরেজি। এই চার বিষয়ে মোট ১০০ মার্কের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। তবে যারা আর্কিটেক্টচারের জন্যেও আবেদন করবে, তাদের এর পাশাপাশি ১০০ নম্বরের ড্রয়িং পরীক্ষাও দিতে হবে। ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের সার্কুলার অনুযায়ী পরীক্ষার মানবন্টন নেওয়া হল–

মানবন্টন
বিষয় নম্বর
ম্যাথ ৪০
ফিজিক্স ৩০
কেমেস্ট্রি ২০
ইংরেজি  ১০
মোট ১০০

মিস্টে আসন সংখ্যা

মিলিটারি ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজিতে মোট আসন আছে ৫৯৫ টি। এখানে মোট বিভাগ আছে ১২ টি। নিচের ছকে প্রতিটি বিভাগে কতটি করে আসন রয়েছে তা দেওয়া হল–

MIST আসন সংখ্যা
বিষয় আসন
সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
ইলেক্ট্রিকাল, ইলেকট্রনিক এন্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং ৪০
এরোনটিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ৫০
নেভাল আর্কিটেকচার এন্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ৪০
মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
নিউক্লিয়ার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ৪০
ইনভায়ারম্যান্টাল, ওয়াটার রিসোর্স এন্ড কোস্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
মাইনিং এন্ড প্যাট্রোল ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
ইনড্রাস্ট্রিয়াল প্রোডাকশন এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ৬০
আর্কিটেক্টচার ২৫
মোট ৫৯৫

কোটার আসন

মিস্টে মিলিটারিদের জন্য আসনের কিছু অংশ বরাদ্দ রয়েছে। মিলিটারির সদস্যদের সন্তানরাও সেই কোটার সুবিধা পেয়ে থাকে। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী ও আন্তর্জাতিক ছাত্র কোটা রয়েছে। নিচে কোটার আসনের অনুপাত দেখে নাও–

MIST কোটা আসন সংখ্যা
কোটার নাম আসন শতকরা
মিলিটারি সদস্যের সন্তান কোটা ৪০%
মুক্তিযোদ্ধা কোটা ২%
উপজাতি কোটা ১%
আন্তর্জাতিক ছাত্র কোটা ৩%
মোট ৪৬%

এছাড়া বাকি আসনগুলো সাধারণ মেধায় ভর্তি নেওয়া হবে।

আরো পড়ো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঘ ইউনিট আসন সংখ্যা

এমআইএসটিতে পড়ালেখার খরচ

মিলিটারি নিয়ন্ত্রিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাধারণত অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে খরচ তুলনামূলক বেশি হয়ে থাকে। মিস্টে সাধারণত চার বছরের বিএসসি সম্পন্ন করতে আড়াই লাখের সামান্য বেশি খরচ হতে পারে।

কেন পড়বে মিস্টে?

মিস্ট বাংলাদেশের একটি সনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য মিস্ট অবশ্যই ভালো একটি চয়েস। খরচ কিছুটা বেশি হলেও এখানে পড়ে বাড়তি সুবিধাও রয়েছে।

মিরপুর সেনানিবাসে এমআইএসটি অবস্থিত হওয়ায় এখানে নিরাপত্তা নিয়ে ভাবনার কোনো কারণ নেই। মিস্ট সম্পূর্ণ ধুমপান ও রাজনীতি মুক্ত। মিস্টে পড়ে এখন অনেকেই দেশের বড় বড় পদে রয়েছে, এমনকি বিদেশেও অনেকে জব পাচ্ছে। MIST ভর্তি তথ্য তোমার উপকারে আসবে বলে আশা করছি। শুভ কামনা রইলো।

Leave a comment