মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে?

প্রশ্ন: মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে?

সঠিক উত্তর: ১৯৮২ সালে

মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে?

রোহিঙ্গা কারা?

রোহিঙ্গা হলো পশ্চিম মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের একটি জনগোষ্ঠী। তারা পৃথিবীর বৃহত্তম রাষ্ট্রবিহীন জনগোষ্ঠী। রোহিঙ্গাদের আদিনিবাস মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে হলেও মিয়ানমারের সামরিক সরকার রোহিঙ্গাদের নিজেদের নাগরিক হিসেবে স্বীকার করে না।

২০১৬ সালে সামরিক বাহিনী কর্তৃক নির্যাতনের পূর্বে অনুমানিক দশ লক্ষের অধিক রোহিঙ্গা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বসবাস করত। কিন্তু সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের মুখে বিশাল সংখ্যক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে। অধিকাংশ রোহিঙ্গা ইসলাম ধর্মের অনুসারি। এছাড়া কিছু সংখ্যক হিন্দু ধর্মের অনুসারি রোহিঙ্গাও রয়েছে।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে?

১৫ অক্টোবর ১৯৮২ সালে মিয়ানমার জান্তা সরকার একটি নাগরিকত্ব আইন প্রকাশ করে। এই আইনে মিয়ানমারের মোট ১৩৫ টি জনগোষ্ঠীকে মিয়ানমারের নাগরিক বলে স্বীকার করা হয়েছে।

কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো, মিয়ানমারের অন্যতম বৃহত্তম জনসংখ্যার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে এই তালিকার বাহিরে রাখা হয়েছে। অর্থাৎ জান্তা সরকার রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে অস্বীকার করেছে। তো মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে? উত্তরটি হচ্ছে ১৯৮২ সালে।

আরো পড়ুন আসিয়ানভুক্ত দেশ মনে রাখার টেকনিক

মিয়ানমার জান্তা সরকার দাবী করে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের নাগরিক, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় সীমান্ত পেরিয়ে মিয়ানমারে প্রবেশ করে। অথচ মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ইতিহাস অনেক প্রাচীন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের অনেক পূর্বেই রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে বাস করে আসছিল।

নাগরিকত্ব হারানোর পর রোহিঙ্গারা বরাবরই অবহেলা ও অত্যাচারের শিকার হতে থাকে। মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি না থাকায় তাদের শিক্ষার কোনো অধিকার ছিল না, চাকরি করারও সুযোগ ছিল না।

ফলে পিছিয়ে পড়তে থাকে রোহিঙ্গারা। এছাড়া সামরিক জান্তা সরকার রোহিঙ্গাদের জমিও দখল করতে শুরু করে। ফলে গৃহহীন হতে থাকে হাজারও রোহিঙ্গা।

রোহিঙ্গাদের উপর দমন পীড়ন এতো বেশি জয় যে, রোহিঙ্গারা শেষ পর্যন্ত বাধ্য হয়ে নিজ দেশ ত্যাগ করে পাশ্ববর্তী দেশ বাংলাদেশে নিরাপদ আশ্রয়ের খোজে চলে আসে। এমনটা সর্বশেষ দেখা গিয়েছে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনী কর্তৃক রোহিঙ্গাদের ওপর মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রমাণ পাওয়া যায়। এই সময় মিয়ানমার থেকে প্রায় সাত থেকে আট লক্ষ রোহিঙ্গা প্রাণ বাচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে।

জেনে নিন সৌরজগতের বৃহত্তম উপগ্রহ কোনটি?

বর্তমানে তারা বাংলাদেশে অবস্থান করছে। বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের ফেরত পাঠাতে তৎপর হলেও মিয়ানমার সরকার এ বিষয়ে একেবারে উদাসীন এবং বারবার বাংলাদেশকে দায়ী করে আসছে। কিন্তু বিশ্বের অনেক দেশই বাংলাদেশকে তাদের সমর্থন জানিয়ে আসছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, রোহিঙ্গাদের ১৯৮২ সালের আইন বাতিল করে তাদের নাগরিকত্ব প্রদান করার মাধ্যমেই রোহিঙ্গাদের অধিকার সংরক্ষণ করা সম্ভব হবে। আজ বিশ্বনেতারাও মিয়ানমার জান্তা সরকারকে আহবান জানিয়েছেন, ১৯৮২ সালে যে আইনটি রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব ছিনিয়ে নিয়েছে সেটি বাতিল করে তাদের নাগরিকত্ব প্রদান করে রোহিঙ্গাদের অধিকার সুনিশ্চিত করা।

প্রশ্নের উৎস

মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা তাদের নাগরিকত্ব হারায় কত সালে প্রশ্নটি ৩৮ তম বিসিএসে এসেছিল। এছাড়া আরো অনেক প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষায় প্রশ্নটি কমন এসেছে।

তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Leave a comment