রেলওয়ে স্টেশন ও জংশনের মধ্যে পার্থক্য কি?

বাংলাদেশ রেলওয়ে দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। এখন অনেকেই নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থা হিসেবে বাংলাদেশ রেলওয়েকেই বেছে নিয়ে থাকেন। কিন্তু অনেক সময় আমরা দেখি কিছু স্টেশনকে জংশন নামে অভিহিত করা হয়। আবার অনেক স্টেশনকে জংশন বলা হয় না। এখন রেলওয়ে স্টেশন ও জংশনের মধ্যে পার্থক্য কি জানতে হলে নিচের লেখাটি সম্পূর্ণ পড়ে ফেলুন।

রেলওয়ে স্টেশন

সাধারণত একটি ট্রেন যেখানে যাত্রা বিরতি দেয় সেটিকেই রেলওয়ে স্টেশন বলে। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার প্রধান রেলওয়ে স্টেশন এবং এখানে প্রতিনিয়তই দূর দূরান্ত থেকে বিভিন্ন ট্রেন তাদের যাত্রা সমাপ্ত বা শুরু করে। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের মতো বাংলাদেশে আরো কয়েকটি প্রসিদ্ধতম রেলওয়ে স্টেশন হচ্ছে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন, দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশন, চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন, চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন, খুলনা রেল ওয়ে স্টেশন, বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক রেলওয়ে স্টেশন ইত্যাদি।

রেলওয়ে স্টেশন ও জংশনের মধ্যে পার্থক্য কি?

রেলওয়ে জংশন

জংশন একটি ইংরেজি শব্দ, যার বাংলা অর্থ হচ্ছে সংযোগ। সহজ ভাষায়, যখন একাধিক রেলওয়ে রুট একটি স্টেশনে একত্রিত বা মিলিত হয়, তখন সেই স্টেশনটিকে একটি জংশন স্টেশন নামেও অভিহিত করা হয়। বাংলাদেশের পাঁচটি বৃহত্তম রেলওয়ে জংশন রয়েছে, যেগুলো হচ্ছে পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশন, সান্তাহার রেলওয়ে জংশন, ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন, আখাউড়া রেলওয়ে জংশন ও লাকসাম রেলওয়ে জংশন।

আরো পড়ুন পাহাড় ও পর্বতের মধ্যে পার্থক্য কি?

রেলওয়ে স্টেশন ও জংশনের মধ্যে পার্থক্য কি?

এবার আমরা কিছু সহজ উদাহরণের সাহায্যে রেলওয়ে স্টেশন ও জংশনের মধ্যে পার্থক্য কি বোঝার চেষ্টা করব। শুরুতেই কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের কথা চিন্তা করা যাক। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে আপনি দুই দিকে যাত্রা করতে পারবেন। প্রথমত একটি লাইন নারায়ণগঞ্জে চলে গিয়েছে এবং অপর একটি লাইন বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন ও ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশন হয়ে জয়দেবপুর গিয়ে ঠেকে গেছে।

অপরদিকে জয়দেবপুর স্টেশন একটি রেলওয়ে জংশন। কেননা এখানে তিনটি লাইন বা রুট একত্রে মিলিত হয়েছে। যার মধ্যে একটি লাইন ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে, একটি লাইন আখাউড়া রেলওয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লা হয়ে চট্টগ্রামে এবং অপর একটি লাইন টঙ্গী হয়ে উত্তরবঙ্গে ঠেকেছে। অর্থাৎ দেখা যাচ্ছে যে একটি রেলওয়ে জংশনে একাধিক লাইন মিলিত হওয়ার নজির দেখতে পাওয়া যায়।

আরো জানুন বিসিএস ক্যাডার কয়টি ও কি কি?

জয়দেবপুর একটি তিন লাইনে জংশন হলেও বাংলাদেশের দুটি চার লাইনের জংশন রয়েছে। পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশন ও লাকসাম রেলওয়ে জংশন চার লাইনের বৃহত্তম জংশন। এছাড়া ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন, সান্তাহার রেলওয়ে জংশন ও আখাউড়া রেলওয়ে জংশন তিন লাইনের রেলওয়ে জংশন। বাংলাদেশের বেশিরভাগ রেলওয়ে জংশনগুলো তিন লাইনের রেলওয়ে জংশন হয়ে থাকে।

এখন এটা বলে রাখা ভালো, প্রত্যেকটি রেলওয়ে জংশনে কিন্তু ট্রেন থামে। তাই রেলওয়ে জংশনগুলোকে রেলওয়ে জংশন স্টেশন নামে অভিহিত করা হয়। বাংলাদেশের কিছু রেলওয়ে জংশনের নাম–

  • পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশন
  • তিস্তা রেলওয়ে জংশন
  • কাউনিয়া রেলওয়ে জংশন
  • কাঞ্চন রেলওয়ে জংশন
  • ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন
  • যশোহর রেলওয়ে জংশন
  • আব্দুলপুর রেলওয়ে জংশন
  • আখাউড়া রেলওয়ে জংশন
  • লাকসাম রেলওয়ে জংশন
  • মাঝগ্রাম রেলওয়ে জংশন
  • ফেনী রেলওয়ে জংশন
  • টঙ্গী রেলওয়ে জংশন
  • জয়দেবপুর রেলওয়ে জংশন
  • লালমনিরহাট রেলওয়ে জংশন
  • আমনুরা রেলওয়ে জংশন
  • কালুখালী রেলওয়ে জংশন
  • কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন
  • গৌরীপুর রেলওয়ে জংশন
  • জামালপুর রেলওয়ে জংশন
  • তারাকান্দি রেলওয়ে জংশন
  • পোড়াদহ রেলওয়ে জংশন
  • বোনারপাড়া রেলওয়ে জংশন
  • শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে জংশন
  • ষোলশহর রেলওয়ে জংশন

তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Leave a comment