বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট আছে যে সব বিশ্ববিদ্যালয়ে

এইচএসসিতে সাধারণত আমরা তিন বিভাগের শিক্ষার্থীদের দেখতে পাই। বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক বিভাগ। তিন বিভাগের বেশির ভাগ শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য থাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ বিভাগের বিষয়গুলো নিয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করার। কিন্তু এর বাহিরেও কিছু শিক্ষার্থীর লক্ষ্য দাঁড়ায় বিভাগ পরিবর্তন করার। আর তাদের জন্য রয়েছে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট ব্যবস্থা।

বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট আছে যে সব বিশ্ববিদ্যালয়ে

বিভাগ পরিবর্তন কী? সহজ ভাবে বলতে গেলে, নিজ বিভাগের পরিবর্তে অন্য বিভাগের বিষয় নেওয়াটাই হল বিভাগ পরিবর্তন। যেমনঃ বিজ্ঞান বিভাগের একজন শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানবিক বা বাণিজ্য বিভাগের বিষয় নিলো। এটাই বিভাগ পরিবর্তন। ঠিক তেমনই বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থী মানবিক বা বিজ্ঞান বিভাগের কোনো বিষয় নিয়ে পড়তে চাইলে তাকে বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে।

বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট আছে যে সব বিশ্ববিদ্যালয়ে

ঠিক একই রকম মানবিকের শিক্ষার্থীদের জন্যেও। তারাও বিভাগ পরিবর্তন করে বিজ্ঞান বিভাগের কিছু বিষয় ও বাণিজ্য বিভাগের বিষয় নিয়ে পড়তে পারবে। বাংলাদেশের বেশি ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগ পরিবর্তনের সুযোগ আছে। এমনকি বিভাগ পরিবর্তন ইউনিটও রয়েছে। এই ইউনিটে আলাদাভাবে পরীক্ষা দিয়ে বিভাগ পরিবর্তন করা যায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বিইউপিতে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট হয়েছে। এছাড়া গুচ্ছে বিভাগ পরিবর্তন করা যাবে কিন্তু এখানে আলাদা কোনো ইউনিট নেই। শিক্ষার্থীদের নিজ ইউনিটে পরীক্ষা দিয়েই বিভাগ পরিবর্তন করতে হবে।

বিভাগ পরিবর্তন ইউনিটগুলোতে সাধারণত বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণজ্ঞান থেকে প্রশ্ন করা হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে আইকিউ, সাধারণ গণিত, সাধারণ বিজ্ঞান, আইসিটি থেকেও প্রশ্ন আসতে পারে। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লিখিত প্রশ্নও হয়। এই পোস্টে আমরা মূলত জানবো, যে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট রয়েছে এবং এদের আসন সংখ্যা ও মানবন্টন। যেটি আশা করছি তোমাদের জন্য একটি তথ্যবহুল লেখা হিসেবে হেল্পফুল হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগ পরিবর্তন করতে চাওয়া শিক্ষার্থীদের প্রথম চয়েজ থাকে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট হচ্ছে ডি বা ঘ ইউনিট। এই ইউনিটে বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক তিন বিভাগের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারবে। ঘ ইউনিটে আসন সংখ্যা ১৫৭০ টি। কিন্তু তিন বিভাগের জন্য নির্দিষ্ট করে আসন সংখ্যা ভাগ করে দেওয়া আছে। এমনকি ভর্তি পরীক্ষার মেরিট লিস্টও আলাদাভাবে দেওয়া হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঘ ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১১১৭ টি আসন, বানিজ্য বিভাগের জন্য ৪০০ টি আসন ও  মানবিক বিভাগের জন্য ৫৩ আসন রয়েছে। এই ইউনিটে মোট আসন ১৫৭০ টি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘ ইউনিটে অন্যান্য ইউনিটের পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষাও হবে। প্রথমে বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণজ্ঞান নিয়ে এমসিকিউ এবং বাংলা, ইংরেজি ও বিশ্লেষণধর্মী সাধারণজ্ঞান নিয়ে লিখিত পরীক্ষা হবে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন সমাধান পাবেন আমাদের সঠিক উত্তর সাইটে।

আরো পড়ো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

বিভাগ পরিবর্তন করার জন্য জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে ৬ টি ইউনিট। ইউনিটগুলো হচ্ছে বি, সি, ই, এফ, জি, আই ইউনিট। তিন বিভাগের শিক্ষার্থীরা এই ইউনিটগুলোতে পরীক্ষা দিতে পারবে। যদিও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলে ও মেয়েদের আলাদা আসন বিন্যাস আছে। আবার বিভাগ অনুযায়ীও আসন ভাগ করে দেওয়া আছে। কোন ইউনিটে কয়টি করে আসন আছে, চলো দেখে নেই।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ইউনিটে ৩২৬ টি আসন, সি ইউনিটে ৪৩৭ টি আসন, ই ইউনিটে ২০০ টি আসন, এফ ইউনিটে ৬০ টি আসন, জি ইউনিটে ৫০ টি আসন এবং আই ইউনিটে ৩০ টি আসন আছে।

বি ও ই ইউনিটে বাংলা, ইংরেজি, সাধারণজ্ঞান ছাড়াও সাধারণ গণিত থেকেও প্রশ্ন করা হয়। সি ইউনিটে বাংলা, ইংরেজি এবং বিষয়ভিত্তিক সাধারণজ্ঞান থেকে প্রশ্ন আসে। এছাড়া এফ ও জি ইউনিটের প্রশ্ন হয়ে থাকে ইংরেজি ভাষায়। এই ইউনিটে আইকিউ থেকে অধিক প্রশ্ন আসে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউনিট আছে ৩ টি। আর তিনটি ইউনিটই হচ্ছে বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট। বিষয়টা খুলে বলি। এ ইউনিট হচ্ছে মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট। এটা মূলত মানবিকদের ইউনিট। কিন্তু বিজ্ঞান ও বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এটা বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট। এই ইউনিটে ২০১৯ টি আসন আছে।

কিছু সংখ্যক আসন মানবিকের জন্য বরাদ্দ হলেও বাকি সব আসন তিন বিভাগের জন্য। অর্থাৎ যে এগিয়ে থাকবে সেই আসনটি পাবে। বি ইউনিট হচ্ছে বাণিজ্য ইউনিট, এই ইউনিটে আইবিএ সহ অন্যান্য বাণিজ্যের বিষয়গুলো আছে। বিজ্ঞান ও মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এটা বিভাগ পরিবর্তন ইউনিট। এই ইউনিটে মোট আসন ৫৬০ টি হলেও বিজ্ঞানের জন্য ৮৫ টি ও মানবিকের জন্য ২০ টি আসন বরাদ্দ।

আর বাণিজ্যের জন্য আসন রয়েছে ৪৫৫ টি। সি ইউনিট হচ্ছে বিজ্ঞান ইউনিট। বিজ্ঞানের কিছু বিষয়ে বাণিজ্য ও মানবিকের জন্য আসন বরাদ্দ আছে। তারা সি ইউনিটে পরীক্ষা দিয়ে বিভাগ পরিবর্তন করতে পারবে।

তিনটি ইউনিটেই বিভাগ পরিবর্তনের জন্য বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণজ্ঞান উত্তর করতে হবে। কিন্তু বি ইউনিটে এগুলোর পাশাপাশি আইসিটি উত্তর করতে হবে।

চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুইটি ইউনিট আছে বিভাগ পরিবর্তন করার জন্য। ইউনিট দুটি হলো বি ও ডি। বি ইউনিটে কলা অনুষদের বিষয়গুলো আছে। আর ডি ইউনিটে সামাজিক বিজ্ঞান, আইন ও ব্যবসা অনুষদের বিষয়গুলো আছে।

চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ইউনিটে ১২২১ টি আসন এবং ডি ইউনিটে ১১৬০ টি আসন রয়েছে। বি ইউনিটে বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণজ্ঞান থেকে প্রশ্ন আসবে। তবে ডি ইউনিটে এর পাশাপাশি আইকিউ থেকে প্রশ্ন আসবে। ডি ইউনিটে তিন বিভাগের জন্য আসন সংখ্যা নির্দিষ্ট করা আছে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস

বিইউপি বা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস একটি পাবলিক ইউনিভার্সিটি, যা সেনাবাহিনী দ্বারা পরিচালিত। এটি মিরপুর সেনানিবাসে অবস্থিত। এই ভার্সিটিতে ৪ টি ইউনিট আছে। যার ৩ টি ইউনিটে বিভাগ পরিবর্তন করা যায়। FSSS ইউনিট হল সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট, FASS ইউনিট হল মানবিক ইউনিট ও FBS হচ্ছে বাণিজ্য ইউনিট। তিন ইউনিটেই তিন বিভাগের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে পারবে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ প্রফেশনালস বিইউপিতে FASS ইউনিটে ৩৫০ টি আসন, FSSS ইউনিটে ২৫০ টি আসন, FBS ইউনিটে ৫০০ টি আসন রয়েছে।

FASS ও FSSS ইউনিটে বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণজ্ঞান থেকে প্রশ্ন আসে। কিন্তু FBS ইউনিটে এর পাশাপাশি সাধারণ গণিত থেকেও প্রশ্ন এসে থাকে। মনে রাখবে, বিইউপি এর পরীক্ষায় প্রশ্ন ইংরেজি মাধ্যমে হবে। যারা বিভাগ পরিবর্তন করতে আগ্রহী তাদের এই লেখাটি বেশ হেল্পফুল হবে বলে আমরা আশাবাদী। আজকে এপর্যন্তই। ধন্যবাদ।

Leave a comment