বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ

বরিশাল বিভাগটি বাংলাদেশের দক্ষিণ -পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত একটি প্রশাসনিক বিভাগ। বাংলাদেশ সরকার ১৯৯৩ সালে ১ জানুয়ারিতে বরিশাল বিভাগকে পঞ্চম বিভাগ হিসেবে ঘোষণা করেন। এর পূর্বে এটি ঢাকা ও পরবর্তীতে খুলনা বিভাগে অন্তর্ভুক্ত ছিল। বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দিক দিয়ে অনন্য!

বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ

বরিশাল বিভাগে কয়টি জেলা রয়েছে? সঠিক উত্তর হচ্ছে ছয়টি। চলুন জেনে নেই বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ কী কী ও তাদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি।

বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ

১. বরিশাল

বরিশাল বাংলাদেশের দক্ষিণ অঞ্চলের একটি জেলা। বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বরিশাল শহরটিকে প্রাচ্যের ভেনিস শহর বলে উপাধি দিয়েছিলেন। আমড়ার জন্য বরিশাল জেলা বাংলাদেশের মধ্যে বিখ্যাত। ২৭৯১ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই জেলাটি ১৭৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বরিশাল জেলার পূর্বের নাম ছিলো বাকেরগঞ্জ।

২. বরগুনা

১৮৩১ বর্গ কিলোমিটার বিশিষ্ট বরগুনা প্রথম জেলা হিসেবে স্বীকৃতি পায় ১৯৮৪ সালে। বাংলাদেশের দক্ষিনাঞ্চলের জেলাগুলো মধ্যে বরগুনা একটি। নারিকেল ও সুপারি এবং বিভিন্ন ধরনের পিঠার জন্য বরগুনা বিখ্যাত।

৩. ভোলা

ভোলা বাংলাদেশের একমাত্র দ্বীপ জেলা যার আয়তন ৩,৪০৩ বর্গ কিলোমিটার। মূলত নদীপথের মাধ্যমেই এই দ্বীপ জেলাটি অন্যান্য জেলার সাথে সংযোগ স্থাপন করেছে। ১৯৮৪ সালে ভোলা মহকুমা জেলা হিসেবে নিজস্ব স্বীকৃত পায়। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রানী হওয়ায় ভোলাকে বলা হয় কুইন আইল্যান্ড অব বাংলাদেশ।

৪. ঝালকাঠি

ঝালকাঠি জেলা বাংলাদেশের সুগন্ধ্যা নদীর উত্তর দিকের তীরে এবং ধানসিঁড়ি নদীর পূর্ব দিকের তীরে ৭০৬ বর্গ কিলোমিটার আয়তন জুড়ে অবস্থিত। এই ধানসিঁড়ি নদীকে ঘিরেই লেখা হয়েছে জীবনানন্দের বিখ্যাত কবিতা “আবার আসিবো ফিরে।” ১৯৮৪ সালে বরিশাল জেলা থেকে পৃথক করে ঝালকাঠিকে পূর্নাঙ্গ জেলায় পরিণত করা হয়েছে।

৫. পটুয়াখালী

সাগরকন্যা হিসেবে বিখ্যাত পটুয়াখালী জেলাটি বাংলাদেশের দক্ষিনাঞ্চলের একটি প্রাচীন শহর ও অন্যতম নদীবন্দর। পটুয়াখালী জেলার আয়তন প্রায় ৩,২২১ বর্গ কিলোমিটার। সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের অপরূপ মনোমুগ্ধকর দৃশ্যের জন্য এই জেলার অন্তর্ভুক্ত “কুয়াকাটা” পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পৃথিবী বিখ্যাত।

৬. পিরোজপুর

পিরোজপুর শহরটি জেলা শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৪ সালে। এর মোট আয়তন ৩২২১ বর্গ কিলোমিটার। পিরোজপুর জেলার পশ্চিমে অবস্থিত সুন্দরবন যা বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন।

আরো পড়ুন

বরিশাল বিভাগ এক সময় শস্যভান্ডারে পরিপূর্ণ থাকলেও ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগ এর শিকার হয়ে এই এলাকায় দারিদ্রতার হার বেড়েছে, কমেছে নদ-নদীর নাব্যতা, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কৃষি ব্যবস্থা।

অন্যদিকে সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক অঙ্গনে বরিশালের অবদান লক্ষ্যনীয়। বরিশালের অর্থনৈতিক কাঠামো উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন নতুন নতুন কর্মসংস্থান। কৃষিভিত্তিক ও মৎসভিত্তিক জীবন ব্যবস্থা উন্নত করতে পারলে প্রাচ্যের এই ভেনিস শহরটি পুনরায় তার স্বরূপে ফিরে আসতে পারবে। বরিশাল বিভাগের জেলা সমূহ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অংশীদারে ব্যাপক ভূমিকা পালন করছে।

তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Leave a comment