অসমাপ্ত আত্মজীবনী ইংরেজিতে অনুবাদ করেন কে?

প্রশ্ন: বঙ্গবন্ধুর লেখা অসমাপ্ত আত্মজীবনী ইংরেজিতে অনুবাদ করেন কে?

সঠিক উত্তর: ফকরুল আলম

অসমাপ্ত আত্মজীবনী ইংরেজিতে অনুবাদ করেন কে?

অসমাপ্ত আত্মজীবনী

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার রাজনৈতিক জীবন নিয়ে কারাগারে থাকা অবস্থায় ডায়েরি লিখতে শুরু করেন। এই ডায়েরিতে তিনি জন্ম থেকে শুরু করে ষাটের দশকের ঘটনাবলি লিপিবদ্ধ করেন।

অসমাপ্ত আত্মজীবনী লেখা শুরু করেন মূলত আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় যখন তিনি কারাগারে ছিলেন। পরবর্তীতে মামলা থেকে অব্যহতি পেলে উক্ত ডায়েরির খাতাগুলোও বঙ্গবন্ধু পরিবারের হাতে চলে আসে। কিন্তু সেগুলো বহুদিন কারো নজরে আসেনি।

অতঃপর শেখ হাসিনা দেশে ফিরলে কাকতালীয়ভাবে ডায়েরিগুলোর খোঁজ পান। এই ডায়েরিতে থাকা ঘটনার বর্ণনা, উপলব্ধি, ইতিহাস দেশের মানুষদের জানা প্রয়োজনীয় বলে মনে করেন। তাই ডায়েরিটি দ্রুতই পুস্তক আমাকে প্রকাশের জন্য উদ্যোগ নেন তিনি।

অবশেষে দীর্ঘ প্রচেষ্টায় ২০১২ সালে প্রকাশিত হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মজীবনীমূলক বই অসমাপ্ত আত্মজীবনী। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার আত্মজীবনী লেখা শুরু করলেও শেষ করে যেতে পারেননি, তাই এই বইয়ের নামকরণ করা হয় অসমাপ্ত আত্মজীবনী।

বইটি প্রকাশিত হবার পরপরেই বইটি কেনার জন্য পাঠক মহলের হিড়িক পড়ে যায়।

অসমাপ্ত আত্মজীবনী ইংরেজিতে অনুবাদ

অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি বাংলায় রচিত হলেও সারা বিশ্বের মানুষের সুবিধার্থে এটি কে ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয় ইংরেজি অনুবাদের দায়িত্ব দেওয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ফকরুল আলম।

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীটি ইংরেজিতে অনুবাদের প্রয়োজনীয়তা প্রথম থেকেই আঁচ করা গিয়েছিল। কেননা আন্তর্জাতিক মহলে সবার প্রথমে ইংরেজি ভাষাতে বইটি পড়ে অন্যান্য ভাষায় অনুবাদের প্রচেষ্টা চালানো সম্ভব ছিল। ইংরেজি ভাষার পর একে একে অন্যান্য ভাষায় অনুবাদ হতে থাকে অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রখ্যাত অধ্যাপক ফকরুল আলম তার দক্ষতার স্বাক্ষর ইংরেজি অনুবাদ বইটিতে দেখিয়েছেন। তার অনুবাদ বাংলা সাহিত্যে উচ্চ পর্যায়ে নিয়ে গেছে। বাংলা একাডেমি পুরষ্কারসহ আরো অনেক পদকে সম্মানিত করা হয়েছে এই গুনী ব্যক্তিকে।

আরো পড়ুন

প্রশ্নের উৎস

এবারের প্রশ্নটি খুব সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ঘ ইউনিটের পরীক্ষায় এসেছিল। এছাড়া এই প্রশ্নটি এযাবৎ বহু চাকরি পরীক্ষায় আসতে দেখা দিয়েছে। বঙ্গবন্ধু সম্পর্কিত প্রশ্ন হওয়ায় এই প্রশ্নটি এমসিকিউ পরীক্ষার পাশাপাশি যেকোনো পরীক্ষার ভাইভা পরীক্ষায়ও আসতে পারে। সরকারি চাকরির জন্য অসমাপ্ত আত্মজীবনী বইটি পড়া আপনার জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে।

তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Leave a comment