অনার্স ও ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য কি?

কখনো কি মাথায় চিন্তায় এসেছে, অনার্স ও ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য কি? আমরা প্রায়সই লক্ষ্য করি, শিক্ষাগত যোগ্যতা বলার সময় কেউ হয়তো অনার্স পাস বা কেউ ডিগ্রী পাস বলে থাকে। কিন্তু এই দুটির মধ্যে পার্থক্য কোথায়? আজকে আমি অনার্স ও ডিগ্রির নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করছি, এই প্রশ্ন নিয়ে আপনার সকল সন্দেহ এবার দূর হবে।

অনার্স ও ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য কি?

অনার্স হচ্ছে চার বছর মেয়াদী একটি কোর্স। অপরদিকে ডিগ্রী তিন বছর মেয়াদী কোর্স। অনার্সে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে চার বছর পড়ানো হয়। যেমন, বাংলা, ইংরেজি, ইতিহাস, বিজ্ঞান, ভূগোল, ফিনান্স ইত্যাদি বিষয়ে অনার্স করা হয়। অপরদিকে ডিগ্রিতে একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে পড়ানো হয় না, বরং অনেকগুলো বিষয়ের কিছু কিছু অংশ একসাথে পড়ানো হয়। ডিগ্রির তুলনায় অনার্স আধুনিক। বাংলাদেশেও অনার্স এর চেয়ে ডিগ্রী শিক্ষার জনপ্রিয় তা বেশি।

অনার্স ও ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য কি?

অনেকেই জানতে চান, ডিগ্রি পাশ করে বিসিএস পরীক্ষা দেওয়া যায় কিনা। উত্তর হচ্ছে শুধুমাত্র ডিগ্রী পাস করে বিসিএস পরীক্ষা দেওয়া যায় না, এর সাথে আপনাকে মাস্টার্স পাশ করতে হবে। ডিগ্রি শিক্ষা ব্যবস্থায় মাস্টার্স দুই বছরের হয়ে তাহকে। অপরদিকে চার বছরে অনার্স পাশ করার পর আপনি এক বছর মেয়াদী মাস্টার্স করতে পারবেন, যেটিকে স্নাতকোত্তরও বলা হয়।

ভালো করে লক্ষ্য করুন, অনার্সে চার বছর স্নাতক ও এক বছর স্নাতক উত্তর করতে মোট পাঁচ বছর লাগে। অপরদিকে ডিগ্রী কোর্সে পাশ তিন বছর ও দুই বছর মাস্টার্স করলে মোট সময়ও কিন্তু পাঁচ বছরই লাগে। অর্থাৎ উভয়ক্ষেত্রে সমান সময় লাগে। যদিও অনার্সে মাত্র চার বছরের স্নাতক পাস করার পরেই বিসিএস পরীক্ষা দেওয়া যায়। তবে ডিগ্রিতে পড়লে বিসিএসে পিছিয়ে পড়ার কোনো সুযোগ নেই। পূর্বের বিসিএস পরীক্ষায় ডিগ্রি থেকেও প্রথম হওয়ার নজির রয়েছে।

আরো পড়ুন পাহাড় ও পর্বতের মধ্যে পার্থক্য কি?

আশা করছি উপরের বিস্তারিত আলোচনার মাধ্যমে এখন পরিষ্কারভাবে আপনি বলতে পারবেন অনার্স ও ডিগ্রির মধ্যে পার্থক্য কি? বাংলাদেশে অনেকেই ডিগ্রী কোর্সকে হেয় চোখে দেখে। অথচ বিগত বিসিএস পরীক্ষায় ডিগ্রি থেকে পাশ হওয়া ক্যান্ডিডেট প্রথম স্থান দখল করার পর ডিগ্রির শিক্ষার্থীরা নিন্দুকদের খুব উচিত জবাব দিতে পেরেছে।

আপনারা যারা ডিগ্রী করছে তারা নিশ্চিত থাকুন নিজের যোগ্যতার উপর ডিগ্রী পাস করেও জীবনে অনেক কিছুই করা যায়। শুধু বিশ্বাস রাখতে হবে নিজের উপর এবং দক্ষতা বাড়ানোর উপর জোর দিতে হবে। সবার জন্য রইল শুভ কামনা।

তথ্যসূত্র উইকিপিডিয়া

Leave a comment